গাঙচিল, সারস কিংবা অতিথি পাখি, কোনটা দেখতে চান ? নাকি সবগুলোই ? তাহলে ঘুরে আসুন টেকনাফের শাহপরীর দ্বীপ।

শাহপরীর দ্বীপ। বাংলাদেশের মূল ভূখন্ডের সর্বদক্ষিনের অংশ। টেকনাফ উপজেলার সাবরাং ইউনিয়নের কয়েকটি ওয়ার্ড নিয়ে শাহপরীর দ্বীপ গঠিত। এই দ্বীপের লোকসংখ্যা ৪০ হাজারের মতো। এদের প্রধান পেশা মাছধরা ও লবণ চাষ। দ্বীপে হাট-বাজার স্কুলে মাদ্রাসা মসজিদ সবিই আছে। আছে প্রকৃতির উদার নীল আকাশ। বর্তমান অনেক পর্যটক কোলাহল ঠেলে শাহপরীর দ্বীপে আসছে ভ্রমনের কিভন্নতা খুজতে। কি কি দেখবেন এখানেঃ দেখতে পারেন শাহপরীর …

Continue Reading

কুতুবদিয়া দ্বীপ ট্রাভেল গাইড। এই শীতে ক্যাম্পিং এর জন্য একটি আদর্শ জায়গা।

মানুষ ঠাসা শহরের চাপে আর থাকতে ইচ্ছা করছে না। ভাবছেন, কোথাও থেকে ঘুরে আসবেন। হাতে যে তালিকাটা আছে, তার প্রায় সবটুকুই দেখা শেষ। এখন নতুন কোনো জায়গার খোঁজে? তো, আর দেরি কেন, ঘুরে আসুন কুতুবদিয়া বাতিঘর । কুতুবদিয়া বাতিঘর যাওয়ার আগে জেনে নিন এর আদ্যোপান্ত। প্রাচীনকাল থেকে চট্টগ্রাম ছিল একটি সমুদ্রবন্দর। খ্রিস্টীয় নয় শতক থেকে আরব বণিকরা চট্টগ্রামের সঙ্গে বাণিজ্যিক …

Continue Reading

বাংলাদেশের একমাত্র পাহাড়ী দ্বীপ মহেশখালী। শীতের মৌসুমে হাজারো রকমের বিদেশী পাখিতে মুখরিত থাকে।

পর্যটন শহর কক্সবাজার জেলার মহেশখালী উপজেলা পাহাড় সমৃদ্ধ একটি বিচ্ছিন্ন দ্বীপ। মূল মহেশখালী দ্বীপের সঙ্গে আরও তিনটি ছোট ছোট দ্বীপ নিয়ে মহেশখালী উপজেলা গঠিত। মহেশখালীর তিনটি দ্বীপের মধ্যে একটি হচ্ছে পর্যটন সম্ভাবনাময় সাগরকন্যা সোনাদিয়া দ্বীপ। এটি মহেশখালী উপজেলার কুতুবজোম ইউনিয়ন পরিষদের একটি ওয়ার্ড। কক্সবাজার জেলা সদর থেকে উত্তর-পশ্চিমে ১৫ কিলোমিটার দূরে এই বালুর দ্বীপটি অবস্থিত, যার আয়তন মাত্র ৭ বর্গ …

Continue Reading

ম্যাজিক প্যারাডাইস পার্ক ।

ঢাকার কাছেই কুমিল্লা জেলার কোটবাড়ি এলাকায় অবস্থিত একটি বিনোদন কেন্দ্র। কুমিল্লা ইউনিভার্সিটির পাশে দিয়ে প্রায় এক কিলোমিটার সামনে গেলেই কোটবাড়ি বনের মধ্যে দেখা মিলবে এক নতুন সম্রাজ্যের। ডিজনিল্যান্ডের (বিশ্বের সবচেয়ে বড় থিম পার্ক) আদলে তৈরি করা হয়েছে বিশাল ফটক। ওয়াটার পার্ক, ২০টিরও বেশি বিভিন্ন ধরনের রাইড, ডাইনোসর পার্ক, পিকনিক স্পটসহ ম্যাজিক প্যারাডাইস পার্কটি বাংলাদেশের অন্যতম একটি এমিউজমেন্ট পার্ক।সবুজ সরল প্রকৃতি …

Continue Reading

ময়নামতি ওয়ার সিমেট্রি,কুমিল্লা।। যেখানে নির্মল ছায়ায় ঘুমিয়ে আছে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের যোদ্ধারা।

ময়নামতি ওয়ার সিমেট্রি কুমিল্লা জেলায় অবস্থিত একটি কমনওয়েলথ যুদ্ধ সমাধি। বাংলাদেশে দুটি কমনওয়েলথ রণ সমাধিক্ষেত্র আছে, যার অপরটি চট্টগ্রামে অবস্থিত।১৯৪১-১৯৪৫ সালে তৎকালীন বার্মায় সংঘটিত যুদ্ধে যে ৪৫০০০ কমনওয়েলথ সৈনিক নিহত হয়,তাঁদের স্মৃতি রক্ষার্থে যতো গুলো ওয়ার সিমেট্রি তৈরি করা হয়েছে এটি তার মধ্যে অন্যতম। কুমিল্লা শহর থেকে প্রায় ৭ কিলোমিটার দূরে কুমিল্লা ক্যান্টনমেন্টের কাছেই এই যুদ্ধ সমাধির অবস্থান। এই সমাধিক্ষেত্রটি …

Continue Reading

মহারাজা প্রথম ধর্মমাণিক্যের ধর্মসাগর দীঘি। একসময় মানুষের জলের কষ্ট নিবারক এখন মানুষের মনের কষ্ট নিবারক।

ধর্মসাগর, প্রায় পৌনে ৬০০ বছর আগে ত্রিপুরার অধিপতি মহারাজা প্রথম ধর্মমাণিক্য এটি খনন করেন। কুমিল্লা শহরের প্রাণকেন্দ্রে অবস্থিত বিশাল এ জলাধারটি সে সময় তৈরি করা হয়েছিল মূলত এ অঞ্চলের মানুষের জলের কষ্ট নিবারণের উদ্দেশ্যে। প্রাচীন এ দীঘি শুধু ইতিহাসের দিক থেকেই পুরনো নয়, প্রাকৃতিক শোভা আর অপরূপ সৌন্দর্যের লীলাভূমিও। ধর্মসাগরের উত্তর কোণে রয়েছে রানীর কুঠি, নজরুল ইনস্টিটিউট। পূর্বদিকে কুমিল্লা জিলা …

Continue Reading

মেঘালয় ট্যুর প্ল্যান এবং খরচাপাতি। একটু হিসেব করে খরচ করলে ৮/৯ হাজার টাকায় ঘুরে আসা সম্ভব।

৩ রাত ৪ দিনের ট্যুরে সাত জনের জন প্রতি মোট খরচ ১০০০০ টাকা। একটু হিসেব করে চললে ৮০০০/৯০০০ টাকার এর মধ্যে হয়ে যাবে। ভিসা লাগবে ডাউকি বর্ডার দিয়ে। বর্ডারে ডলার চেক করে। সাথে করে ডলার নিয়ে যাবেন দেশ থেকেই। ট্রাভেল ট্যাক্স দেশেই দিয়ে যাবেন। তাইলে বর্ডার দ্রুত পার হতে পারবেন। ট্রাভেল ট্যাক্স জমা দিতে হয় সোনালী ব্যাংকে। চট্টগ্রামের ধলিয়ানপাড়া, দেওয়ানহাট …

Continue Reading

বাঁশের রাজত্বে ভেলাখুম।

বর্তমান বাংলাদেশের যেসব খুম আলো ছড়াচ্ছে তাদের মধ্যে সব চেয়ে সুন্দর থানাচি উপজেলার ন্যাইখ্যাংছড়ির ভেলাখুম। দুই পাশে কালো পাথরের বিশাল দেওয়াল আর মাঝে বিশাল চৌবাচ্চা। তাতে জমে আছে সাতভাই খুম থেকে নেমে আসা স্বচ্ছ নীল জল। বাহন কেবলই বাঁশের ভেলা। ভেলাখুম জলপ্রপাত কোথায়ঃ ভেলাখুম জলপ্রপাত বাংলাদেশের বান্দরবান জেলার থানচি উপজেলায় বাংলাদেশ-মিয়ানমার সীমান্তে দুর্গম  স্থানের অবস্থান । থানচি বাজার থেকে ৩/৪ …

Continue Reading

তুইনুম ঝর্ণা

বাংলাদেশে যতোগুলো ঝর্ণা আরে তার অধিকাংশই রয়েছে পার্বত্য জেলা বান্দরবানে। মজার বেপার হলো, এখন পর্যন্ত যতোগুলো ঝর্ণা আমিষ্কার হয়ে তার চেয়ে ঢের বেশি ঝর্ণা এখনো লোক চক্ষুর অগোচরেই রয়ে গেছে। আর তেমনই একটি ঝর্ণা তুইনুম ঝর্ণা। তুইনুম ঝর্ণা ( লম্বা গড়ি): ঝর্ণাটির অবস্থান “তুইনুম” ঝিরিতে। এলাকাটিতে ম্রো সম্প্রদায়ের বাস। তাদের ভাষায় ” তুইনুম অ”। ম্রো ভাষায় ” তুই ” অর্থ …

Continue Reading

“জিংসিয়াম সাইতার ঝর্ণা” দুঃখ ভরা এক রাতের সাক্ষী।

বলা হয় ঝর্ণার স্বর্গ বান্দরবান জেলা। গতো এক দশকে বাংলাদেশের তুরুণ ট্রাভেলার বহু ঝর্ণা আবিষ্কারের গল্প সামনে এনেছেন। যা হয়তো আরো অনেক বছর লোক চক্ষুর বাইরেই থেকে যেতো। এখনো অসংখ্য ঝর্ণা অজানা আছে। তাইতো ভ্রমণ পাগলা মানুষ আবিষ্কারের নেশায় প্রতিনিয়ত পথে বের হচ্ছেন। বান্দরবানের অসংখ্য ঝর্ণার মধ্যে একটা দারুন রোমাঞ্চকর এবং দুঃখজনক ঘটনার সাক্ষী জিংসিয়াম সাইতার ঝর্ণা। জিংসিয়াম সাইতার ঝর্ণাটি …

Continue Reading